‘আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কবিতা’র আসরে লেখক-কবিদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক

বিশ্বব্যাপী সাম্রাজ্যবাদী, জাতিবাদী, ফ্যাসিবাদী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদী কবিতা পাঠের আসর থেকে লেখক-কবিদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সংঘের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) বিকালে বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সংঘের উদ্যোগে পুরানা পল্টনস্থ প্রগতি সম্মেলন কক্ষে ‘আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কবিতা’ শিরোনামে এই কবিতা পাঠের আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রগতি লেখক সংঘের সভাপতি কবি গোলাম কিবরিয়া পিনু, সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কবি, সাংবাদিক দীপংকর গৌতম।

অনুষ্ঠানে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, প্রগতি লেখক সংঘের সহসভাপতি শামসুজ্জামান হীরা ও জাকির হোসেন।

আগ্রাসনের বিরুদ্ধে স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কবি মতিন বৈরাগী, ফারুক মাহমুদ, গোলাম কিবরিয়া পিনু, দুলাল সরকার, সিরাজুল ফরিদ, বাবুল আনোয়ার, মিলি হক, প্রণব মজুমদার,মিলি হক, রঘু অভিজিৎ রায়, দীপংকর গৌতম, রইস মুকুল, বিমল কান্তি দাস,অভিনু কিবরিয়া ইসলাম, মামুন কবীর, মনির হোসেন আনান্দ প্রমুখ।

প্রতিবাদী কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী বদরুল আহসান খান, জাহিদ বিন মতিন, প্রশান্ত মণ্ডল, সরদার আবদুল করিম। প্রতিবাদী গান পরিবেশন করেন সংগীতশিল্পী তুহিন কান্তি দাস।

কবিতা পাঠের ব্যতিক্রমধর্মী এই আসরে সংহতি জানিয়ে বক্তারা বলেন, আগ্রাসন বিষয়টি বহুমূখী প্রত্যয় ধারণ করে৷ মধ্যপ্রাচ্য, লাতিন আমেরিকাসহ সারা বিশ্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছে। সামরিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক আগ্রাসনের পাশাপাশি বিশ্বায়নের মুখোশে চলছে নানামুখী সাংস্কৃতিক আগ্রাসন।

বক্তারা বলেন, প্রতিবেশী ভারতসহ গোটা উপমহাদেশে চলছে ধর্মের নামে আগ্রাসন। ভারতবর্ষে হিন্দুত্ববাদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রগতিশীল লেখক-কবি-বুদ্ধিজীবীরা রাস্তায় নেমেছেন। আমাদের দেশসহ পৃথিবীর দেশে দেশে ফ্যাসিবাদী প্রবণতা ও আগ্রাসন বাড়ছে। এই সকল আগ্রাসনের শিকার হচ্ছে সাধারণ মুক্তিকামী মানুষ। এর প্রতিবাদে লেখক, কবি, বুদ্ধিজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে কবিদের কবিতায় উঠে আসে বিশ্বব্যাপী আগ্রাসনের বিভিন্ন রূপ এবং তার বিরুদ্ধে প্রতিরোধের বার্তা। কবিরা কবিতা পাঠের পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সকল প্রগতিশীল মানুষকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.